ট্রেন্ডিং নিউজ

এ বছরের শেষের দিকে চালু হবে হাইপারলুপ!

বর্তমান পৃথিবীর সেরা ১০ ধনী ব্যক্তিত্ব! (২০১৮ ইং)

তরুনদের জন্য বাজারে এলো নতুনত্বে ভরপুর ফোরজি ’স্কিটো’ সিম!

উৎপাদনশীলতা বাড়াতে ইলন মাস্কের ৬ টি মূল মন্ত্র!

ফেসবুক মেসেনজার বট ও ন্যাচারাল ল্যাংগুয়েজ প্রসেসিং নিয়ে কিছু কথা

রবিবার ২০ মে, ২০১৮

আবার চালু হলো সেলবাজার ডট কম!

মনে আছে সেলবাজার ডট কম এর কথা?

এটি ছিলো একক একটি মানুষের স্বপ্ন। আজ থেকে প্রায় ১৩ বছর আগে এই দেশে প্রথমবারের মতো যে কিনা মোবাইলের এসএমএসের মাধ্যমে সেকেন্ড হ্যান্ড দৈনন্দিন পণ্য বিক্রি করার আইডিয়া নিয়ে অনলাইনে আত্নপ্রকাশ করেছিলেন। তার নাম কামাল কাদির। তিনি বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত আমেরিকান নাগরিক, বর্তমানে বিকাশের প্রধান কার্য নির্বাহী। তার সেই সেলবাজারের আইডিয়াটা খুবই ইউনিক, ক্রিয়েটিভ এবং ইনোভেটিভ ছিলো।

যার ফলে কয়েক বছর পরে এর উপর চোখ পড়ে বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান টেলিনরের। ২০১০ সালে মোটা অংকে সেলবাজারকে কিনে নেয় টেলিনর। কিনে নেবার পর এর নাম দেয়া হয় “এখানেই ডট কম।” এশিয়াটিককে দিয়ে টিভি এড বানিয়ে প্রচার করা হয়। সে সময় মুটামুটি একটা হাইপ তৈরী করেছিলো তাদের সিরিজ এডগুলো। 

কামাল কাদির সাহেবের ছোটবেলা থেকেই নাকি ইচ্ছে ছিলো একটা অনলাইন সেবাভিত্তিক খাত গড়ে তুলবেন। এই লোকটির একাডেমিক এবং প্রফেশনাল ক্যারিয়ার অত্যন্ত বর্ণাঢ্য! আমরা খুব শীঘ্রই আমাদের Dhaka Tonic এর জন্য তাঁর একটা সাক্ষাৎকার নিবো।

তো এত বড় একটা কোম্পানি একটা ব্যাক্তিমালিকানাধীন সেবাকে কিনে নেবার পর স্বভাবতই সবাই ধারনা করেছিলো যে, সেলবাজার তথা এখানেই ডট কম আরো বিশাল পরিসরে এই দেশে কাজ করবে। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো, বিপুল পরিমান টাকা লগ্নি করে রিব্রান্ডিং করা সত্ত্বেও গত বছরের মে মাসে মাত্র এক দিনের নোটিশে রাতারাতি “এখানেই ডট কমকে” বন্ধ ঘোষণা করে টেলিনর।

এই রাতারাতি বন্ধ করার বিষয়টা বেশ রহস্যজনক ছিলো। তো ব্যাক্তিগত আগ্রহে আমরা মাঠে নামার পর তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করতে গিয়ে দেখে কেউ এর ব্যাপারে খুব বেশী কিছু জানে না। এই রহস্যজনক বিষয়টা নিয়ে কেন যেন কারোই কোন মাথা ব্যথা নেই।এমনকি, খানেই ডট কমকে ভারতের ক্লাসিফাইড মার্কেট প্লেসের কাছে বিক্রি করে দেয়া হয়েছে বলেও জোর একটা গুজব আমাদের কানে এসেছে।

কেন এখানেই ডট কম মুখ থুবড়ে পড়লো এত বড় একটা কোম্পানীর অধীনে থাকার পরেও, এই প্রশ্ন আমাদের মনে খচ খচ করতেই থাকলো। একটু একটু করে গবেষণা করা শুরু হলো। অল্প কিছুদিনের ভেতরই বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য খুঁজে পাওয়া গেলো। সেইসব নিয়ে ছোট খাটো একটা গবেষণাপত্রও লেখার কাজ চলছে।

যে কারণে এই সংবাদটি লিখতে বসা সেটা হলো, সেই সেলবাজার ডট কম এই মাস থেকে আবার পুরোদমে চালু করা হয়েছে। সেই পুরনো সাধামাদা লোগো, পুরনো ব্রান্ডিং, পুরনো ওয়েব ইন্টারফেস। যদিও পুরনো লোগোতে সামান্য কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। আগের ডোমেইন নামের সাথে বর্তমান নামের পার্থক্য মাত্র একটা ‍বাড়তি ’a’- এ। পুরনো সেলবাজার ডট কমে ক্লিক করলে সেটা এখানো “এখানেই ডট কম” এই ভিজিটরদের রিডিরেক্ট করে।

আসলে চালুটা গত মাসেই হয়েছিলো, কিন্তু সাইটে অনেক বাগ ছিলো, সেগুলো সারিয়ে কিছুদিন আগে ভালোভাবে লঞ্চ করা হয়েছে। তাদের নতুন এই সাইটে ঢুকতে এখানে ক্লিক করুন। গত বছরের ডিসেম্বরে একাধিক দেশীয় নিউজ পোর্টালে খবর বেরিয়েছিলো যে, “২০ নভেম্বর ডোমেইন নেমটি জিতে নেন বাংলাদেশের এক উদ্যোক্তা।”

”এখানেই ডট কম” বন্ধ করার ঘোষণাপত্রে টেলিনর বলেছিলো, ’বাংলাদেশের বাজার এখনো ক্লাসিফাইড মার্কেট প্লেসের জন্য তৈরী নয়।’ আমরা চাই, সেলবাজার প্রমান করে দেখাক যে টেলিনরের এই ধারনা ভুল ছিলো। আমরা কায়মনোবাক্যে চাই, ক্লাসিফাইড মার্কেটপ্লেসের এই আদি সেবাটি আবারো ঘুরে দাঁড়াক, মেতে উঠুক বিক্রয় ডট কমের সাথে তুমুল প্রতিদ্বন্দিতায়।

 

Comments

মন্তব্য করুন

এই বিভাগের অন্যান্য পোস্ট